Ultimate Marketing Solution

গুগল মাই বিজনেস (GMB) কি এবং কেন দরকার ? 

গুগল মাই বিজনেস Google My Business (GMB), হচ্ছে লোকাল ব্যবসায় ও লোকাল এসইও এর গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। আমরা সবাই জানি বর্তমান সময়ে যে কোন ব্যবসার ডিজিটাল প্লাটফর্ম অনলাইন মার্কেটিং ছাড়া চিন্তা করা প্রায় অসম্ভব। কোন বিজনেসের ডিজিটাল উপিস্থিতি বা ডিজিটাল মার্কেটিং এর জন্য যেসব কাজ করা হয় তার বেশিরভাগ অংশ দখল করে থাকে গুগল মাই বিজনেস পেজ বা এই GMB । এটি খুব গুরুত্বপূর্ণ সার্ভিস, ব্যবসায়কে কাস্টমারদের কাছে উপস্থাপন করার জন্য। লোকাল এসইও বা যে কোন ধরনের ব্যবসায় ব্র‍ান্ডিং এবং মার্কেটিং এর জন্য অন্যতম বৃহত্তম পরিচালক হিসেবে কাজ করে।

Google My Business (GMB) কি?

গুগল মাই বিজনেস এমন একটি টুল বা সার্ভিস যা গুগলের মাধ্যমে আপনার ব্যবসায় বা প্রতিষ্ঠান বা সংস্থার অনলাইন উপস্থিতি তৈরী করে। ফলে যে কোন ব্যবসায় গুগল এ সার্চ রেজাল্ট পেজে এবং গুগল ম্যাপে সহজে খুঁজে পাওয়া যায়। কোন বিজনেসের নাম লিখে গুগলে সার্চ করলে পিসিতে ডান পাশে এবং মোবাইলে উপরের দিকে একটা বক্সের মধ্যে ব্যবসায় লোকেশন, ফটো, এড্রেস সহ বিভিন্ন তথ্য দেখা যায়। আবার কোন সর্ভিস বা ব্যবসায় ক্যাটাগরি লিখে সার্চ করলে সার্চ রেজাল্টে ম্যাপ সহ তিনটি ব্যবসায় এর নাম ও কিছু তথ্য দেখায়। গুগল মাই বিজনেস  পেজ তৈরি এবং আপডেট করার ফলে এই তথ্যগুলি প্রদর্শন করে। আর এটাকে Google ভাষায় বলে ওয়ানবক্স বা নলেজগ্রাফ।

ওয়ানবক্স বা নলেজ প্যানেলে কি কি তথ্য প্রদর্শন করে?

যখন কোন বিজনেসের নাম লিখে সার্চ করা হয় তখন কম্পিউটারের ডান পাশে এবং মোবাইলের উপর দিকে একটা বক্সে আলাদাভাবে ঐ ব্যবসায় সংক্রান্ত কিছু তথ্য দেখায়, (উপরের চিত্রানুযায়ী), একে Knowledge Graph বা One Box Result বলে। ব্যবসায় ক্যাটাগরি ভেদে তথ্য গুলি পরিবর্তন হয়। সাধারণত নিচের তথ্যগুল সবসময় এ অংশে দেখা যায়-
১. বিজেনেসের নাম, ২. ব্যবসায় ক্যাটাগরি, ৩. ম্যাপ – ব্যবসায় লোকেশন, ৪. ব্যবসায় অ্যাড্রেস, ৫. ব্যবসায় আওয়ার, ৬. ফোন নম্বর, ৭. ওয়েবসাইট, ৮. কল অপশন – মোবাইলের জন্য, ৯. মেনু লিংক, অর্ডার লিংক, রিজার্ভেশন লিংক (রেস্টুরেন্ট বা হোটেল বিজনেসের ক্ষেত্রে), ১০. পেমেন্ট সিস্টেম, ওয়াফাই সার্ভিস সহ বিভিন্ন অ্যাট্রিবিউট (ব্যবসায় ক্যাটাগরি ভেদে আলাদা হয়), ১১. ফটো – লোগো, ওয়ার্কিং ফটো, টিম, ব্যবসায় সংক্রান্ত যে কোন ফটো, ১২. ভিডিও – ব্যবসায় রিলেটেড, ১৩. প্রশ্ন এবং উত্তর সেশন, ১৪. ব্যবসায় রিভিউ – গুগল, ফেসবুক, ইয়েল্প প্রভৃতি, ১৫. রেটিং, ১৬. স্পেশাল অফার বা পোস্ট
এছাড়া, যখন কোনো লোকাল কি-ওয়ার্ড লিখে গুগলে সার্চ করবেন তখন নিচের চিত্রানুযায়ী একটি অংশ দেখতে পাবেন, একে Google 3 Pack বা Local Pack বলে।

কেন প্রয়োজন জিএমবি (GMB)?

৮০ শতাংশ মানুষ লোকাল ব্যবসায় ইনফরমেশনের জন্য গুগলে সার্চ করে।
যারা সার্চ করে তাদের ৩০–৫০ শতাংশ মানুষ ব্যবসায় লোকেশন ভিজিট করে।
যারা লোকাল ব্যবসায় সম্পর্কে সার্চ করে তাদের মধ্যে অধিকাংশ মানুষ প্রডাক্ট বা সার্ভিস ক্রয় করে।
নিজের ওয়েব পরিচয় প্রকাশের সবথেকে সহজ মাধ্যম GOOGLE, আর এর সবচেয়ে বড় টুল হচ্ছে GMB।
আপনি যদি একজন ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসায়ী হন তাহলে, লোকাল কাস্টমারদের প্রয়োজনীয়তা নিশ্চয় আপনি কখনোই অস্বীকার করতে পারেন না। যেখানে এখন বুঝতেই পারছেন এই জিএমবি কতটা গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু আপনার কাছে।

গুগল মাই বিজনেস এর কিছু ফিচার সমূহ কি কি?

১. ইনফো (Info): জিএমবি এর মাধ্যমে ব্যবসায় সংক্রান্ত বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য গুগলে প্রদর্শিত হয়।
২. পোস্ট (Post) : সরাসরি এই পেজের মাধ্যমে বিভিন্ন পোস্ট বা অফার শেয়ার করা যায়। এই পোস্টে বাই বাটন, বুক বাটন বা ওয়েবসাইট এর লিংক বাটন এ্যাড করা যায়।
৩. ওয়েবসাইট (Website) : গুগল মাই বিজনেস থেকে বিনামুল্যে ওয়েবাসাইট বানাতে পারেন।
৪. গুগল এডওয়ার্ডস (Google AdWords) : গুগল অ্যাডওয়ার্ডস সরাসরি ম্যানেজ করা যায় এবং ব্যবসায়কে লিংকআপ করা যায়। খুর সহজেই ব্যবসায় লোকেশনের নির্দিষ্ট এরিয়ার মধ্যে বা আপনার পছন্দ মতো শহরে অ্যাড দেখানো যায়।
৫. ইনসাইট (Insight) : কতজন ব্যবসায় সার্চ করল, কতজন কল করেছে বা কতজন ওয়েবসাইট ভিজিট করেছে ইত্যাদি রিপোর্ট পাওয়া যায়।

গুগল মাই বিজনেস ব্যবহারের সুবিধা কি?

১. ডিজিটাল উপস্থিতি:  জিএমবি গুগলে বিজনেসের ডিজিটাল উপস্থিতি নিশ্চিত করে। এর ফলে গুগল সার্চ পেজে এবং ম্যাপে ব্যবসায়কে সহজেই খুঁজে পাওয়া যায়।
২. কাস্টমার ইন্টারঅ্যাকশন: Google My Business সার্চ পেজ থেকে সরাসরি ইন্টারঅ্যাক্ট করার সুবিধা দেয়। এর মাধ্যমে কাস্টমার যে কোন প্রশ্ন করতে পারে এবং  ব্যবসায় প্রোভাইডার সহজেই সেই প্রশ্নের উত্তর দিতে পারে এবং ফিডব্যাকের রেসপন্স করতে পারে।
৩. এক প্ল্যাটফর্মে সবকিছু: গুগল মাই বিজনেসের মাধ্যমে একসাথে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেখানো যায়। ব্যবসায় নাম, সার্ভিস, অ্যাড্রেস, কন্টাক্ট, ম্যাপ, ব্যবসায় আওয়ার ইত্যাদি তথ্য এক সাথে দেখানো যায়। এতে ক্লায়েন্ট খুব সহজেই ব্যবসায় সম্পর্কে ইনফরমেশন পায় এবং প্রয়োজনে কন্টাক্ট করতে পারে।
৪. ম্যাপ ভিজিবিলিটি:  জিএমবি পেজ ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে গুগল ম্যাপে ব্যবসায় লোকেশন দেখা যায় এবং যে কেউ খুব সহজেই ব্যবসায় লোকেশেনে পৌছতে পারে।

কোন কোন প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসায় জিএমবি পেজ তৈরি করতে পারবে?

যে কোন ধরনের প্রতিষ্ঠান, সংস্থা, ছোট, মাঝারি বা বড় আকারের দোকান, রেষ্টুরেন্ট, যে কোন ধরনের সার্ভিস প্রোভাইডার, ফিজিক্যাল অ্যাড্রেস আছে এমন যে কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। তবে সংস্থা বা ব্যবসা নয় এমন কোন প্রতিষ্ঠানের জন্য এই সার্ভিস প্রযোজ্য হবে না। অল্পসময়ের জন্য ভাড়া বাড়ি বা অস্থায়ী ব্যবসার জন্য Google My Business সার্ভিস প্রযোজ্য নয়।

কিভাবে GOOGLE MY BUSINESS অ্যাকাউন্ট তৈরি করবেন?

জিএমবি অ্যাকাউন্ট তৈরির জন্য একটি সবার আগে একট গুগল অ্যাকাউন্ট বা জিমেইল দরকার হবে।
গুগল মাই বিজনেস অ্যাকাউন্ট তৈরির জন্য google.com/business এই অ্যাড্রেসে যেতে হবে।
এরপর SIGN IN বাটনে ক্লিক করে জিমেইল দিয়ে সাইন ইন করতে হবে। জিমেইল না থাকলে More Options এরপর Create account থেকে নতুন অ্যাকাউন্ট ওপেন করতে হবে।
এরপর ব্যবসায় নাম লিখে NEXT বাটনে ক্লিক করতে হবে।
কান্ট্রি, স্ট্রীট অ্যাড্রেস, সিটি ও পোস্টাল কোড লিখতে হবে। আপনার বিজনেসের ডেলিভারি সার্ভিস থাকলে “I deliver goods and services to my customers” এর বক্সে টিক চিহ্ন দিন। এরপর NEXT বাটনে ক্লিক করুন।
ডেলিভারি সার্ভিসে টিক চিহ্ন দিলে আপনার ডেলিভারি সিস্টেম বা এরিয়া সিলেক্ট করে দিতে হবে। এরপর NEXT বাটনে ক্লিক করুন। ডেলিভারি সার্ভিসে টিক চিহ্ন না দিলে এই অপশন আসবে না।
সরাসরি আপনার গুগল ম্যাপ আসবে। লাল মার্কারটি ড্র্যাগ করে সঠিক পজিশনে রাখুন। এরপর NEXT বাটনে ক্লিক করুন।
ব্যবসায় ক্যাটগরি দিন। সঠিক ক্যাটাগরি দিবেন। এরপর NEXT বাটনে ক্লিক করুন।
ফোন নম্বর এবং ওয়েবসাইট দিয়ে NEXT বাটনে ক্লিক করুন।
CONTINUE বাটনে ক্লিক করুন। Done!
উল্লেখ্য যে, ব্যবসায় নাম, ক্যাটাগরি, অ্যাড্রেস, ফোন নম্বর, ওয়েবাসাইট যেভাবে লিখবেন, যে ফরম্যাটে লিখবেন, হুবহু সেভাবেই ইনফরমেশনগুলি সেভ করে রাখবেন। ফরম্যাট বা লেখা পরিবর্তন করলে ভবিষ্যতে আপনার ব্যবসায় সংক্রান্ত এস.ই.ও এর কাজগুলোতে সমস্যায় পড়বেন।

গুগল মাই বিজনেস ভেরিফিকেশন প্রসেস-

ভেরিফিকেশন মূলত চার ভাবে হয়। Call, Text, Mail, Email
এই অপশনগুলির মধ্যে মেইল কমন এবং বেশিরভাগ সময় এই প্রসেসে হয়ে থাকে।
এই অপশনগুলি আপনার নিজের পছন্দমতো সিলেক্ট করতে পারবেন না। গুগল যে অপশন দিবে, সেই পদ্ধতিতে ভেরিফাই করতে হবে। Call অপশন থাকলে মোবাইলে কল আসবে এবং একটা পিন কোড বলবে। Text হলে মেসেজে একটা পিন কোড আসবে। Email হলে আপনার ইমেইলে একটা পিন কোড আসবে। Mail হলে পোস্ট অফিসের মাধ্যমে চিঠি আসবে, সেখানে পিন কোড থাকবে। গুগল ১৪ দিনের মধ্যে চিঠি পৌছার কথা বললেও বাংলাদশে সাধারণত ২০-২৫ দিন লাগে। ভেরিফিকেশন রিকোয়েস্ট ৩০ দিন পর্যন্ত অন থাকে। এর মধ্যে ভেরিফাই করতে না পারলে আবার নতুনভাবে রিকোয়েস্ট করতে হবে।

আশা করি আমি আপনাদের একটি GMB পেজ কি, কিভাবে তৈরি করবেন এবং এর গুরুত্ব কি এটি বোঝাতে সক্ষম হয়েছি। যদি এরপরও কোন প্রকার সহযোগীতার দরকার হয়, নি-সংকোচে Digital Marketing InterAgent এর সাথে যোগাযোগ করবেন।

Spread the love

1 thought on “গুগল মাই বিজনেস (GMB) কি এবং কেন দরকার ? ”

  1. The Beatles – легендарная британская рок-группа, сформированная в 1960 году в Ливерпуле. Их музыка стала символом эпохи и оказала огромное влияние на мировую культуру. Среди их лучших песен: “Hey Jude”, “Let It Be”, “Yesterday”, “Come Together”, “Here Comes the Sun”, “A Day in the Life”, “Something”, “Eleanor Rigby” и многие другие. Их творчество отличается мелодичностью, глубиной текстов и экспериментами в звуке, что сделало их одной из самых влиятельных групп в истории музыки. Музыка 2024 года слушать онлайн и скачать бесплатно mp3.

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top